ঢাকা ০৫:৫৪ অপরাহ্ন, শনিবার, ২৪ ফেব্রুয়ারী ২০২৪, ১২ ফাল্গুন ১৪৩০ বঙ্গাব্দ

তীব্র শীতে উপহারের কম্বল পেয়ে বোদা-দেবীগঞ্জের হাজারো নারী পুরুষের মুখে অকৃত্রিম হাসি: প্রধানমন্ত্রী ও সাদ্দামের জন্য দোয়া ও আর্শিবাদ

শহীদুল ইসলাম শহীদ,পঞ্চগড়

প্রচণ্ড শীতের কষ্টে কাতর নুরজাহান বেগমের মুখে অকৃত্রিম হাসি। পঞ্চগড়ের বোদা উপজেলার সদরের গরুহাটি এলাকার এ বৃদ্ধ নারী গত কয়েক দিনে শীতে বেশ কষ্টে দিন যাপন করছিলেন। অভাবের কারণে তার লেপ বা কম্বল কেনা সম্ভব হচ্ছিল না। তিনি বলেন, ‘কম্বলডা পায় হেনে খুব উপকার হইল, একটু আরাম করে ঘুমুবা পারিম। শেখ হাসিনা আর সাদ্দাম ছুয়াডার তানে আল্লাহর কাছে দুয়া করিম।’
সোমবার (২৯ জানুয়ারি) দুপুরে জেলার বোদা উপজেলা সদরের কেন্দ্রীয় শহীদ মিনার চত্বরে তারুণ্য গড়বে পঞ্চগড় ব্যানারে আয়োজিত উপহার হিসেবে ছাত্রলীগের কেন্দ্রীয় কমিটির ছাত্রলীগের সভাপতি সাদ্দাম হোসেনের হাতে কম্বল পান তিনি। সেখানে নতুন কম্বল হাতে পেলে তার খুশি দেখে কে? তিনি ঠিকমত হাঁটাচলা করতে পারেন না। লাঠিতে ভর দিয়ে এসেছিলেন কম্বল নিতে। এমন খুশি সখিনা বেগম, ফরিদা বেগম, জয়া রানী, আব্বাস, আমির ও অন্তরা আক্তারেরও। কম্বল পেয়ে তারা বলেন, এই শীতে একটি কম্বল কত প্রয়োজন তা একমাত্র শীতে কষ্ট পাওয়া গরিব মানুষ ভালো জানে। নুরজাহানের মত এমন হাজারো নারী পুরুষের মুখে হাসি ফুটিয়েছেন সাদ্দাম হোসেন। অনেকের চোখে মুখে ছিল হাসির ঝিলিক । এর আগে ঈদ ও পূজোতে উপহার নিয়ে দাঁড়িয়েছিলেন তিনি। কম্বল পেয়ে অনেকে আবেগে আপ্লুত হয়ে পড়েন। অনেকেই প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা ও সাদ্দাম হেসেনের জন্য দোয়া ও আর্শিবাদ করতে দেখা যায়।
এ সময় সাদাম হোসেন বলেন, সকলেই জানেন, আমি ছাত্র মানুষ ছাত্র রাজনীতি করি। আর এই ছাত্র রাজনীতির মাঝে মানুষের প্রতি দায়িত্বের অংশ হিসেবে ছাত্রলীগের কর্মী হওয়ার পরেও সময়ের প্রয়োজনে, সমাজের প্রয়োজনে, মানুষের প্রয়োজনে আজকের এই শীতবস্ত্র উপহার হিসেবে বিতরণ করছি। এটি আমার ব্যক্তিগত কোন কর্মসূচি নয়, এটি পঞ্চগড়ের তারুণ্যের কর্মসূচি। মানবিক দায়িত্ববোধ থেকে আপনাদের জন্য মানবতার মা মাননীয় প্রধানমন্ত্রী দেশরত্ন শেখ হাসিনার পক্ষ থেকে সামান্য এই উপহার নিয়ে এসেছি। নেতা হওয়ার জন্য রাজনীতি নয়, ঐক্যবদ্ধ হয়ে মানুষের প্রয়োজনে মানুষের পরিবর্তনের জন্য কাজ করে যাবো, সেটাই হবে রাজনীতি। সততা, দক্ষতা, আন্তরিকতা আর শক্তি সামর্থ্য নিয়ে মানুষের জন্য যেন কাজ করে যেতে পারেন এজন্য সকলের নিকট দোয়া ও আর্শিবাদ কামনা করেন । তিনি সকলকে দল, উপদল, ভেদাভেদ ভুলে শেখ হাসিনার নেতৃত্বে ঐক্যবদ্ধ হয়ে মানুষের জন্য কাজ করার আহবান জানান।
উপজেলা আওয়ামী লীগের যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক রবিউল আলম সাবুল বলেন, সাদ্দাম হোসেন ঈদ,পূজা ও শীতে উপহার বিতরণ করে বোদা-দেবীগঞ্জের মানুষের মাঝে পরিচিত হয়ে উঠেছেন। ইতোমধ্যে তিনি অসুস্থ অসহায় গণমাধ্যমকর্মীসহ অনেকের পাশে এসে দাঁড়িয়েছেন। আগামীতে এলাকার মানুষ তাঁকে আরো বড় জায়গায় দেখতে চায়। বোদা-দেবীগঞ্জের অনেক নেতাকর্মী, সমর্থক ও বিশিষ্টজনেরা এমন মন্তব্য করেছেন।
এর আগে তারুণ্যে গড়বে পঞ্চগড় ব্যানারে বাংলাদেশ ছাত্রলীগের সভাপতি সাদ্দাম হোসেনের উদ্যোগে মাননীয় প্রধানমন্ত্রীর পক্ষ থেকে বোদা ও দেবীগঞ্জ উপজেলার ২০ টি ইউনিয়নসহ দুটি পৌরসভায় উষ্ণ উপহার হিসেবে ১৫ হাজার নারী, পুরুষ, শিশু, ইমাম, মুয়াজ্জিনদের মাঝে কম্বল বিতরণ করার কর্মসূচির ইতি টানেন তিনি।

ট্যাগস :
জনপ্রিয়

পলাশে এনা-কাভার্ডভ্যানের মুখোমুখি সংঘর্ষ, নিহত ২ আহত ৬

তীব্র শীতে উপহারের কম্বল পেয়ে বোদা-দেবীগঞ্জের হাজারো নারী পুরুষের মুখে অকৃত্রিম হাসি: প্রধানমন্ত্রী ও সাদ্দামের জন্য দোয়া ও আর্শিবাদ

আপডেট : ০৩:২৫:১৩ অপরাহ্ন, মঙ্গলবার, ৩০ জানুয়ারী ২০২৪

শহীদুল ইসলাম শহীদ,পঞ্চগড়

প্রচণ্ড শীতের কষ্টে কাতর নুরজাহান বেগমের মুখে অকৃত্রিম হাসি। পঞ্চগড়ের বোদা উপজেলার সদরের গরুহাটি এলাকার এ বৃদ্ধ নারী গত কয়েক দিনে শীতে বেশ কষ্টে দিন যাপন করছিলেন। অভাবের কারণে তার লেপ বা কম্বল কেনা সম্ভব হচ্ছিল না। তিনি বলেন, ‘কম্বলডা পায় হেনে খুব উপকার হইল, একটু আরাম করে ঘুমুবা পারিম। শেখ হাসিনা আর সাদ্দাম ছুয়াডার তানে আল্লাহর কাছে দুয়া করিম।’
সোমবার (২৯ জানুয়ারি) দুপুরে জেলার বোদা উপজেলা সদরের কেন্দ্রীয় শহীদ মিনার চত্বরে তারুণ্য গড়বে পঞ্চগড় ব্যানারে আয়োজিত উপহার হিসেবে ছাত্রলীগের কেন্দ্রীয় কমিটির ছাত্রলীগের সভাপতি সাদ্দাম হোসেনের হাতে কম্বল পান তিনি। সেখানে নতুন কম্বল হাতে পেলে তার খুশি দেখে কে? তিনি ঠিকমত হাঁটাচলা করতে পারেন না। লাঠিতে ভর দিয়ে এসেছিলেন কম্বল নিতে। এমন খুশি সখিনা বেগম, ফরিদা বেগম, জয়া রানী, আব্বাস, আমির ও অন্তরা আক্তারেরও। কম্বল পেয়ে তারা বলেন, এই শীতে একটি কম্বল কত প্রয়োজন তা একমাত্র শীতে কষ্ট পাওয়া গরিব মানুষ ভালো জানে। নুরজাহানের মত এমন হাজারো নারী পুরুষের মুখে হাসি ফুটিয়েছেন সাদ্দাম হোসেন। অনেকের চোখে মুখে ছিল হাসির ঝিলিক । এর আগে ঈদ ও পূজোতে উপহার নিয়ে দাঁড়িয়েছিলেন তিনি। কম্বল পেয়ে অনেকে আবেগে আপ্লুত হয়ে পড়েন। অনেকেই প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা ও সাদ্দাম হেসেনের জন্য দোয়া ও আর্শিবাদ করতে দেখা যায়।
এ সময় সাদাম হোসেন বলেন, সকলেই জানেন, আমি ছাত্র মানুষ ছাত্র রাজনীতি করি। আর এই ছাত্র রাজনীতির মাঝে মানুষের প্রতি দায়িত্বের অংশ হিসেবে ছাত্রলীগের কর্মী হওয়ার পরেও সময়ের প্রয়োজনে, সমাজের প্রয়োজনে, মানুষের প্রয়োজনে আজকের এই শীতবস্ত্র উপহার হিসেবে বিতরণ করছি। এটি আমার ব্যক্তিগত কোন কর্মসূচি নয়, এটি পঞ্চগড়ের তারুণ্যের কর্মসূচি। মানবিক দায়িত্ববোধ থেকে আপনাদের জন্য মানবতার মা মাননীয় প্রধানমন্ত্রী দেশরত্ন শেখ হাসিনার পক্ষ থেকে সামান্য এই উপহার নিয়ে এসেছি। নেতা হওয়ার জন্য রাজনীতি নয়, ঐক্যবদ্ধ হয়ে মানুষের প্রয়োজনে মানুষের পরিবর্তনের জন্য কাজ করে যাবো, সেটাই হবে রাজনীতি। সততা, দক্ষতা, আন্তরিকতা আর শক্তি সামর্থ্য নিয়ে মানুষের জন্য যেন কাজ করে যেতে পারেন এজন্য সকলের নিকট দোয়া ও আর্শিবাদ কামনা করেন । তিনি সকলকে দল, উপদল, ভেদাভেদ ভুলে শেখ হাসিনার নেতৃত্বে ঐক্যবদ্ধ হয়ে মানুষের জন্য কাজ করার আহবান জানান।
উপজেলা আওয়ামী লীগের যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক রবিউল আলম সাবুল বলেন, সাদ্দাম হোসেন ঈদ,পূজা ও শীতে উপহার বিতরণ করে বোদা-দেবীগঞ্জের মানুষের মাঝে পরিচিত হয়ে উঠেছেন। ইতোমধ্যে তিনি অসুস্থ অসহায় গণমাধ্যমকর্মীসহ অনেকের পাশে এসে দাঁড়িয়েছেন। আগামীতে এলাকার মানুষ তাঁকে আরো বড় জায়গায় দেখতে চায়। বোদা-দেবীগঞ্জের অনেক নেতাকর্মী, সমর্থক ও বিশিষ্টজনেরা এমন মন্তব্য করেছেন।
এর আগে তারুণ্যে গড়বে পঞ্চগড় ব্যানারে বাংলাদেশ ছাত্রলীগের সভাপতি সাদ্দাম হোসেনের উদ্যোগে মাননীয় প্রধানমন্ত্রীর পক্ষ থেকে বোদা ও দেবীগঞ্জ উপজেলার ২০ টি ইউনিয়নসহ দুটি পৌরসভায় উষ্ণ উপহার হিসেবে ১৫ হাজার নারী, পুরুষ, শিশু, ইমাম, মুয়াজ্জিনদের মাঝে কম্বল বিতরণ করার কর্মসূচির ইতি টানেন তিনি।