ঢাকা ০৬:৩৯ অপরাহ্ন, শনিবার, ২৪ ফেব্রুয়ারী ২০২৪, ১২ ফাল্গুন ১৪৩০ বঙ্গাব্দ

সুগন্ধা’র তীরে মাটি কাটার অপরাধে চার লাখ টাকা জরিমানা; আটক-৩

আমির হোসেন , ঝালকাঠি প্রতিনিধিঃ

ঝালকাঠি সদর উপজেলার দেউড়ি এলাকায় সুগন্ধা নদীর চর থেকে অবৈধভাবে মাটি কাটার অপরাধে ৪ লাখ টাকা জরিমানা এবং ৩ জনকে আটক করা হয়েছে।

রবিবার (২১জানুয়ারী) বিকেলে মাটি কাটার সময় তাদেরকে আটক করা হয়। আটকৃতরা হলেন ট্রলারের মালিক ঝালকাঠি কৃষ্ণকাটি এলাকার দলু পাটোয়ারীর ছেলে মাহবুব পাটোয়ারী, অন্য দুইজন হচ্ছে আমতলী গোপখালী ইউনিয়নের আজাহার আলীর ছেলে আব্বাস ও আমতলী চাড়াখালি ইউনিয়নের রাজ্জাকের ছেলে আলামিন। এরা দুজন মাটি কাটা শ্রমিক। বিষয়টি নিশ্চিত করছেন ভ্রাম্যমাণ আদালতের নির্বাহী ম্যাজিস্টেট মহিন উদ্দিন।

আটককৃতদের ঝালকাঠি গুরুধাম এলাকায় ভ্রাম্যমাণ আদালতে বসিয়ে ট্রলারের মালিক মাহবুব পাটোয়ারীকে ৩ লাখ টাকা জরিমানা অনাদায়ে ৬ মাসের বিনাশ্রম কারাদণ্ড, এদের সাথে থাকা শ্রমিক আব্বাসকে ৫০ হাজার টাকা জরিমানা অনাদায়ে ৩ মাসের বিনাশ্রম কারাদন্ড এবং আলামিনকে ৫০ হাজার টাকা জরিমানা অনাদায়ে ৩ মাসের কারাদণ্ড প্রদান করেন। জেলা প্রশাসক কার্যালয়ের নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট (আরডিসি) মহিন উদ্দিন ও নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট মংএছেন ভ্রাম্যমাণ আদালত পরিচালনা করেন।

এ বিষয়ে ভ্রাম্যমাণ আদালতের নির্বাহী ম্যাজিস্টেট মহিন উদ্দিন বলেন, ভাঙ্গন তীরবর্তী এলাকায় সরকারি নির্দেশ অমান্য করে অবৈধভাবে মাটি কাটার অপরাধে মাটি বালু উত্তোলন আইনে আসামিদের দন্ড দেওয়া হয়েছে। ভবিষ্যতে এ রকমের অপরাধ না করার জন্য আসামিদের সতর্ক করেন। অভিযানে ঝালকাঠি সদর থানা পুলিশের একটি টিম ও আনসার ব্যাটালিয়নের একটি টিম সার্বিক সহযোগিতা করেন।

উল্লেখ্য, মাটি কাটার অপরাধে ২০২৩ সালের জানুয়ারি মাসে ট্রলার মালিক মাহবুব পাটোয়ারীকে ভ্রাম্যমান আদালতের মাধ্যমে ২ লাখ টাকা জরিমানা করা হয়েছিল।

ট্যাগস :
জনপ্রিয়

পলাশে এনা-কাভার্ডভ্যানের মুখোমুখি সংঘর্ষ, নিহত ২ আহত ৬

সুগন্ধা’র তীরে মাটি কাটার অপরাধে চার লাখ টাকা জরিমানা; আটক-৩

আপডেট : ১১:৪০:১৭ অপরাহ্ন, সোমবার, ২২ জানুয়ারী ২০২৪

আমির হোসেন , ঝালকাঠি প্রতিনিধিঃ

ঝালকাঠি সদর উপজেলার দেউড়ি এলাকায় সুগন্ধা নদীর চর থেকে অবৈধভাবে মাটি কাটার অপরাধে ৪ লাখ টাকা জরিমানা এবং ৩ জনকে আটক করা হয়েছে।

রবিবার (২১জানুয়ারী) বিকেলে মাটি কাটার সময় তাদেরকে আটক করা হয়। আটকৃতরা হলেন ট্রলারের মালিক ঝালকাঠি কৃষ্ণকাটি এলাকার দলু পাটোয়ারীর ছেলে মাহবুব পাটোয়ারী, অন্য দুইজন হচ্ছে আমতলী গোপখালী ইউনিয়নের আজাহার আলীর ছেলে আব্বাস ও আমতলী চাড়াখালি ইউনিয়নের রাজ্জাকের ছেলে আলামিন। এরা দুজন মাটি কাটা শ্রমিক। বিষয়টি নিশ্চিত করছেন ভ্রাম্যমাণ আদালতের নির্বাহী ম্যাজিস্টেট মহিন উদ্দিন।

আটককৃতদের ঝালকাঠি গুরুধাম এলাকায় ভ্রাম্যমাণ আদালতে বসিয়ে ট্রলারের মালিক মাহবুব পাটোয়ারীকে ৩ লাখ টাকা জরিমানা অনাদায়ে ৬ মাসের বিনাশ্রম কারাদণ্ড, এদের সাথে থাকা শ্রমিক আব্বাসকে ৫০ হাজার টাকা জরিমানা অনাদায়ে ৩ মাসের বিনাশ্রম কারাদন্ড এবং আলামিনকে ৫০ হাজার টাকা জরিমানা অনাদায়ে ৩ মাসের কারাদণ্ড প্রদান করেন। জেলা প্রশাসক কার্যালয়ের নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট (আরডিসি) মহিন উদ্দিন ও নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট মংএছেন ভ্রাম্যমাণ আদালত পরিচালনা করেন।

এ বিষয়ে ভ্রাম্যমাণ আদালতের নির্বাহী ম্যাজিস্টেট মহিন উদ্দিন বলেন, ভাঙ্গন তীরবর্তী এলাকায় সরকারি নির্দেশ অমান্য করে অবৈধভাবে মাটি কাটার অপরাধে মাটি বালু উত্তোলন আইনে আসামিদের দন্ড দেওয়া হয়েছে। ভবিষ্যতে এ রকমের অপরাধ না করার জন্য আসামিদের সতর্ক করেন। অভিযানে ঝালকাঠি সদর থানা পুলিশের একটি টিম ও আনসার ব্যাটালিয়নের একটি টিম সার্বিক সহযোগিতা করেন।

উল্লেখ্য, মাটি কাটার অপরাধে ২০২৩ সালের জানুয়ারি মাসে ট্রলার মালিক মাহবুব পাটোয়ারীকে ভ্রাম্যমান আদালতের মাধ্যমে ২ লাখ টাকা জরিমানা করা হয়েছিল।