ঢাকা ০৬:০৯ অপরাহ্ন, শনিবার, ২৪ ফেব্রুয়ারী ২০২৪, ১২ ফাল্গুন ১৪৩০ বঙ্গাব্দ

শিবপুরে প্রিজাইডিং কর্মকর্তাকে মারধর, হামলা-ভাংচুর ও ব্যালট পেপার ছিনতাই

হাজী জাহিদ, নরসিংদী:

নরসিংদী-৩ আসনের শিবপুরে দুলালপুর ফাজিল (ডিগ্রী) মাদ্রাসা কেন্দ্রে হামলা ও ভাংচুর চালিয়েছে দুর্বৃত্তরা। এসময় ব্যালট পেপার ছিনিয়ে নেওয়া হয়েছে। এতে বাধা দিলে কেন্দ্রের প্রিজাইডিং কর্মকর্তাকে মারধর করা হয়েছে। পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আনতে কেন্দ্রের দায়িত্বে থাকা আসনার ও পুলিশ সদস্য পর পর ৬ রাউন্ড গুলি ছোঁড়ে।

ওই সময় ঘটনাস্থল থেকে ৮ জনকে আটক করে আইন শৃঙ্খলা বাহিনীর সদস্যরা।
হামলা ও ভাংচুরের পর কেন্দ্রের ভোট বাতিল করে কেন্দ্রটি ভোটগ্রহণ স্থগিত ঘোষণা করেছেন রিটানিং কর্মকর্তা। ঘটনার পর পরই নরসিংদী জেলা প্রশাসক ও জেলা রিটানিং কর্মকর্তা ড. বদিউল আলম ও নরসিংদী পুলিশ সুপার মো. মোস্তাফিজুর রহমানসহ আইন শৃঙ্খলা বাহিনীর সদস্যরা ঘটনাস্থল পরিদর্শন করেন। কেন্দ্রের রিটানিং কর্মকর্তা মো. রেজাউল হাসান জানিয়েছেন, দুপুর ১টার দিকে ৫০ থেকে ৬০ জন লোক হঠাৎ কেন্দ্রের ভেতরে ডুকে ব্যালট পেপার ছিনিয়ে নেয়।

ওই সময় বাধা দিতে গেলে তারা আমাদের মারধোর ও ভাংচুর করে। পরে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আনতে কেন্দ্রের দায়িত্বে থাকা আনসার ও পুলিশ সদস্যদের গুলি করার নির্দেশ দেওয়া হয়। পরে পর পর ৬ রাউন্ড ফাঁকা গুলি ছোঁড়া হলে তারা পালিয়ে যায়। ওই সময় তাদের হামলা থেকে বাঁচতে আমরা দরজা বন্ধ করে দিয়েছিলাম।

ট্যাগস :
জনপ্রিয়

পলাশে এনা-কাভার্ডভ্যানের মুখোমুখি সংঘর্ষ, নিহত ২ আহত ৬

শিবপুরে প্রিজাইডিং কর্মকর্তাকে মারধর, হামলা-ভাংচুর ও ব্যালট পেপার ছিনতাই

আপডেট : ০৪:১২:০৮ অপরাহ্ন, রবিবার, ৭ জানুয়ারী ২০২৪

হাজী জাহিদ, নরসিংদী:

নরসিংদী-৩ আসনের শিবপুরে দুলালপুর ফাজিল (ডিগ্রী) মাদ্রাসা কেন্দ্রে হামলা ও ভাংচুর চালিয়েছে দুর্বৃত্তরা। এসময় ব্যালট পেপার ছিনিয়ে নেওয়া হয়েছে। এতে বাধা দিলে কেন্দ্রের প্রিজাইডিং কর্মকর্তাকে মারধর করা হয়েছে। পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আনতে কেন্দ্রের দায়িত্বে থাকা আসনার ও পুলিশ সদস্য পর পর ৬ রাউন্ড গুলি ছোঁড়ে।

ওই সময় ঘটনাস্থল থেকে ৮ জনকে আটক করে আইন শৃঙ্খলা বাহিনীর সদস্যরা।
হামলা ও ভাংচুরের পর কেন্দ্রের ভোট বাতিল করে কেন্দ্রটি ভোটগ্রহণ স্থগিত ঘোষণা করেছেন রিটানিং কর্মকর্তা। ঘটনার পর পরই নরসিংদী জেলা প্রশাসক ও জেলা রিটানিং কর্মকর্তা ড. বদিউল আলম ও নরসিংদী পুলিশ সুপার মো. মোস্তাফিজুর রহমানসহ আইন শৃঙ্খলা বাহিনীর সদস্যরা ঘটনাস্থল পরিদর্শন করেন। কেন্দ্রের রিটানিং কর্মকর্তা মো. রেজাউল হাসান জানিয়েছেন, দুপুর ১টার দিকে ৫০ থেকে ৬০ জন লোক হঠাৎ কেন্দ্রের ভেতরে ডুকে ব্যালট পেপার ছিনিয়ে নেয়।

ওই সময় বাধা দিতে গেলে তারা আমাদের মারধোর ও ভাংচুর করে। পরে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আনতে কেন্দ্রের দায়িত্বে থাকা আনসার ও পুলিশ সদস্যদের গুলি করার নির্দেশ দেওয়া হয়। পরে পর পর ৬ রাউন্ড ফাঁকা গুলি ছোঁড়া হলে তারা পালিয়ে যায়। ওই সময় তাদের হামলা থেকে বাঁচতে আমরা দরজা বন্ধ করে দিয়েছিলাম।