ঢাকা ০৪:৪৮ অপরাহ্ন, মঙ্গলবার, ২৩ জুলাই ২০২৪, ৮ শ্রাবণ ১৪৩১ বঙ্গাব্দ

নরসিংদীতে আদালতে চলমান মামলাকে বৃদ্ধাঙ্গুলি দেখিয়ে অন্যের বসতভিটা দখলের চেষ্টার অভিযোগ

নরসিংদী প্রতিনিধি।

নরসিংদী সদর উপজেলার চিনিশপুর ইউনিয়নের দগরিয়া জজকোর্টের মামলাকে অমান্য করে ১০ শতাংশ জমি জোরপূর্বক দখলের চেষ্টা করছে। এ ব্যাপারে নরসিংদী মডেল থানায় একটি লিখিত অভিযোগ দায়ের করা হয়েছে। জানা যায়, উপজেলার ভাগদী মৌজার খতিয়ান আর এস ১৭২ নং দাগের ৩৮ শতাংশ হইতে পৈত্রিক সূত্রে ও ক্রয় সূত্রে মালিক হিসাবে ভোগ দখল করিয়া আসছেন।

নরসিংদী মডেল থানার অভিযোগ ও ভুক্তভোগী পরিবার সূত্রে জানা যায়, নরসিংদী পৌরসভার ১ নং ওয়ার্ডের বাসিন্দা মৃত কে এম আরমান হোসেন, রাবিয়া ও পারুলের কাছ থেকে দুটি দলিলে আট শতাংশ জায়গা ক্রয় করেন। মইনুল এর বাবা যাদের কাছ থেকে সম্পত্তি ক্রয় করেছেন, পারুল ও রাবিয়া ৯৪ দাগে ৩৮শতাং হইতে ওয়ারিশ সূত্রে ৩ শতাংশ জমির মালিক হন বিক্রি করেছেন ৮ শতাংশ।

৩ শতাংশ মালিকপক্ষের কাছ থেকে ঢাকা সিলেট হাইওয়ে রোডের দশ হাত দূরত্বে বর্তমানে পুকুর ৮ শতাংশ দলিল করার ফলে উক্ত জায়গা পূরণ করতে আবুল হাসেমের ছোট ভাই আবু নেওয়াজের পৈত্রিক ও ক্রয়কৃত সম্পত্তি জোরপূর্বক দখল করার জন্য ভাড়াটিয়া সন্ত্রাসীদেরকে নিয়ে ভয়-ভীতি দেখাচ্ছেন বলে অভিযোগ করেন আবু নেওয়াজের পরিবার।

২০২১ সালে মইনুল নরসিংদী সিনিয়র সহকারী সহকারী জজ আদালতে ১৪৫ ধারা একটি মামলা করেন যাহার নং ৯৯৬, আদালতের নির্দেশে নরসিংদী সদর উপজেলা ভূমি অফিসের সার্ভেয়ার তদন্ত করে আদালতে প্রতিবেদন দিলে মইনুলের বিরুদ্ধে প্রতিবেদন গেলে আদালত থেকে মামলাটি প্রত্যাহার করে নেন।

মইনুল ফেরদৌস পেশায় একজন ভূমি কর্মকর্তা হওয়ায় আদালত ও কোটকাচারী কিছু করতে পারবেননা বলেও বিভিন্ন সময় হুমকি দিয়ে আসছেন বলে জানান ভুক্তভোগী পরিবার।
১৩-০৫-২০২৪ আনুমানিক বিকাল ৫ ঘটিকার সময় ৫/৬ জনের মত বহিরাগত লোকজন নিয়ে ভুক্তভোগী পরিবারের লোকজনকে ভয়ভীতি প্রদর্শন করেন বলে উল্লেখ করে নরসিংদী মডেল থানায় একটি অভিযোগ দায়ের করেন হালিমা বেগম।
জাকির মিছির জানান মইনুল ফেরদৌস যে কোন সময় আমাদেরকে বড় ধরনের ক্ষতি সাধন করতে পারে, আবু নেওয়াজ বলেন উক্ত জমি পৈত্রিক সূত্রে মালিক আমি, মইনুল আমার বসত ভিটাতে এসে জোরপূর্বক দখল করতে চাচ্ছে এবং হুমকি দিয়ে গেছে যে কোন সময় আমাদের বাড়ি ঘর ভাঙচুর করবে।

দগরিয়া স্থানীয় বাসিন্দা মজিদ ভুইয়া, নজরুল ইসলাম, রহিম মিয়া, জয়, আব্দুল কুদ্দুস, জোসনা বেগম, কোহিনুর বেগমসহ একাধিক ব্যক্তি জানান, আবু নেওয়ার পৈত্রিক ও ক্রয় সূত্রে উক্ত জমি ঘরবাড়ি করিয়া ভোগ দখল করিয়া আসছে।

এ ব্যাপারে জানতে মইনুল ফেরদৌসের মুঠো ফোনে ফোন দিলে তিনি আমাদের প্রতিবেদকে জানান এই বিষয়ে সরাসরি কথা বলতে হবে, এবং আবু নেওয়াজের বসবাস কৃত জায়গা তার বলে দাবি করেন।

অভিযোগের বিষয়ে এস আই মাহমুদুল হাসান জানান অভিযোগ এর বিষয়ে তদন্ত করতে ঘটনাস্থল গিয়ে উভয়পক্ষকে শান্তি বজায় রাখার জন্য নির্দেশ দেই।

নরসিংদী মডেল থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা তানভীর আহমেদ জানান আইনশৃঙ্খলার অবনতি ঘটলে আমরা অবশ্যই সেটা দেখব, তবে জমি সংক্রান্ত বিষয় এটি আদালতে বিষয়।

ট্যাগস :
জনপ্রিয়

ঠাকুরগাঁওয়ে ৫ লাখ টাকা কুড়িয়ে পেয়ে মাইকিং করে ভাইরাল হওয়া সৌরভ গ্রেফতার

নরসিংদীতে আদালতে চলমান মামলাকে বৃদ্ধাঙ্গুলি দেখিয়ে অন্যের বসতভিটা দখলের চেষ্টার অভিযোগ

আপডেট : ১২:২৫:৫০ পূর্বাহ্ন, শুক্রবার, ৩১ মে ২০২৪

নরসিংদী প্রতিনিধি।

নরসিংদী সদর উপজেলার চিনিশপুর ইউনিয়নের দগরিয়া জজকোর্টের মামলাকে অমান্য করে ১০ শতাংশ জমি জোরপূর্বক দখলের চেষ্টা করছে। এ ব্যাপারে নরসিংদী মডেল থানায় একটি লিখিত অভিযোগ দায়ের করা হয়েছে। জানা যায়, উপজেলার ভাগদী মৌজার খতিয়ান আর এস ১৭২ নং দাগের ৩৮ শতাংশ হইতে পৈত্রিক সূত্রে ও ক্রয় সূত্রে মালিক হিসাবে ভোগ দখল করিয়া আসছেন।

নরসিংদী মডেল থানার অভিযোগ ও ভুক্তভোগী পরিবার সূত্রে জানা যায়, নরসিংদী পৌরসভার ১ নং ওয়ার্ডের বাসিন্দা মৃত কে এম আরমান হোসেন, রাবিয়া ও পারুলের কাছ থেকে দুটি দলিলে আট শতাংশ জায়গা ক্রয় করেন। মইনুল এর বাবা যাদের কাছ থেকে সম্পত্তি ক্রয় করেছেন, পারুল ও রাবিয়া ৯৪ দাগে ৩৮শতাং হইতে ওয়ারিশ সূত্রে ৩ শতাংশ জমির মালিক হন বিক্রি করেছেন ৮ শতাংশ।

৩ শতাংশ মালিকপক্ষের কাছ থেকে ঢাকা সিলেট হাইওয়ে রোডের দশ হাত দূরত্বে বর্তমানে পুকুর ৮ শতাংশ দলিল করার ফলে উক্ত জায়গা পূরণ করতে আবুল হাসেমের ছোট ভাই আবু নেওয়াজের পৈত্রিক ও ক্রয়কৃত সম্পত্তি জোরপূর্বক দখল করার জন্য ভাড়াটিয়া সন্ত্রাসীদেরকে নিয়ে ভয়-ভীতি দেখাচ্ছেন বলে অভিযোগ করেন আবু নেওয়াজের পরিবার।

২০২১ সালে মইনুল নরসিংদী সিনিয়র সহকারী সহকারী জজ আদালতে ১৪৫ ধারা একটি মামলা করেন যাহার নং ৯৯৬, আদালতের নির্দেশে নরসিংদী সদর উপজেলা ভূমি অফিসের সার্ভেয়ার তদন্ত করে আদালতে প্রতিবেদন দিলে মইনুলের বিরুদ্ধে প্রতিবেদন গেলে আদালত থেকে মামলাটি প্রত্যাহার করে নেন।

মইনুল ফেরদৌস পেশায় একজন ভূমি কর্মকর্তা হওয়ায় আদালত ও কোটকাচারী কিছু করতে পারবেননা বলেও বিভিন্ন সময় হুমকি দিয়ে আসছেন বলে জানান ভুক্তভোগী পরিবার।
১৩-০৫-২০২৪ আনুমানিক বিকাল ৫ ঘটিকার সময় ৫/৬ জনের মত বহিরাগত লোকজন নিয়ে ভুক্তভোগী পরিবারের লোকজনকে ভয়ভীতি প্রদর্শন করেন বলে উল্লেখ করে নরসিংদী মডেল থানায় একটি অভিযোগ দায়ের করেন হালিমা বেগম।
জাকির মিছির জানান মইনুল ফেরদৌস যে কোন সময় আমাদেরকে বড় ধরনের ক্ষতি সাধন করতে পারে, আবু নেওয়াজ বলেন উক্ত জমি পৈত্রিক সূত্রে মালিক আমি, মইনুল আমার বসত ভিটাতে এসে জোরপূর্বক দখল করতে চাচ্ছে এবং হুমকি দিয়ে গেছে যে কোন সময় আমাদের বাড়ি ঘর ভাঙচুর করবে।

দগরিয়া স্থানীয় বাসিন্দা মজিদ ভুইয়া, নজরুল ইসলাম, রহিম মিয়া, জয়, আব্দুল কুদ্দুস, জোসনা বেগম, কোহিনুর বেগমসহ একাধিক ব্যক্তি জানান, আবু নেওয়ার পৈত্রিক ও ক্রয় সূত্রে উক্ত জমি ঘরবাড়ি করিয়া ভোগ দখল করিয়া আসছে।

এ ব্যাপারে জানতে মইনুল ফেরদৌসের মুঠো ফোনে ফোন দিলে তিনি আমাদের প্রতিবেদকে জানান এই বিষয়ে সরাসরি কথা বলতে হবে, এবং আবু নেওয়াজের বসবাস কৃত জায়গা তার বলে দাবি করেন।

অভিযোগের বিষয়ে এস আই মাহমুদুল হাসান জানান অভিযোগ এর বিষয়ে তদন্ত করতে ঘটনাস্থল গিয়ে উভয়পক্ষকে শান্তি বজায় রাখার জন্য নির্দেশ দেই।

নরসিংদী মডেল থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা তানভীর আহমেদ জানান আইনশৃঙ্খলার অবনতি ঘটলে আমরা অবশ্যই সেটা দেখব, তবে জমি সংক্রান্ত বিষয় এটি আদালতে বিষয়।