ঢাকা ০৬:১৬ পূর্বাহ্ন, মঙ্গলবার, ২১ মে ২০২৪, ৭ জ্যৈষ্ঠ ১৪৩১ বঙ্গাব্দ

ঝালকাঠির ৪ উপজেলায় ইসতিসকার নামাজ আদায়

আমির হোসেন, ঝালকাঠি প্রতিনিধিঃ

ঝালকাঠিতে অনাবৃষ্টি ও তীব্র দাপদাহ ওষ্ঠাগতপ্রায় জীবন। বৃষ্টির আশায় আকাশপানে তাকিয়ে মানুষ। এমন অবস্থায় গরম থেকে রক্ষা পেতে বৃষ্টি কামনায় ঝালকাঠি জেলার ৪টি উপজেলায়ই ইসতিসকার নামাজ আদায় করা হয়েছে।

শনিবার (২৭ এপ্রিল) সকাল ৯টায় ঝালকাঠি সরকারি উচ্চ বিদ্যালয়ের মাঠে ইসতিসকার নামাজ অনুষ্ঠিত হয়েছে। নির্ধারিত সময়ের আগেই টুপি মাথায় জায়নামাজ নিয়ে মাঠে জড়ো হন স্থানীয় মুসল্লিরা। নামাজে ইমামতি করেন শহরের গুরুধাম জামে মসজিদের ইমাম হাফেজ মহিউদ্দিন। নামাজে সর্বস্তরের মুসল্লিরা এ নামাজে অংশ নেয়।

এদিকে ঝালকাঠির রাজাপুরে সকাল ৯ টায় পাড়গোপালপুর ইসাহাকাবাদ হোসাইনাইনিয়া সিনিয়র আলিম মাদ্রাসার আয়োজনে মাদ্রাসা সংলগ্ন রৌদ্রোজ্জ্বল মাঠে ইসতিসকার নামাজ আদায় করা হয়। নামাজে ইমামতি করেন মাদ্রাসার সিনিয়র প্রভাষক মাওলানা হেমায়েত উদ্দিন। এ সময় অন্যান্যের মধ্যে উপস্থিত ছিলেন মাদ্রাসা অধ্যক্ষ মাওলানা আলমগীর হোসাইন, উপাধ্যক্ষ মাওলানা মাহবুবুর রহমান, প্রভাষক মাওলানা আক্তারুজ্জামান, প্রভাষক মাওলানা মোস্তাফিজুর রহমান, মাওলানা নুরুজ্জামান, মাওলানা আইউব আলী, মাওলানা শহিদুল ইসলামসহ এলাকার বিভিন্ন স্তরের মুসল্লিবৃন্দ।

অনাবৃষ্টি ও তীব্র গরম থেকে বাঁচতে বৃষ্টির প্রার্থনায় এ নামাজের আয়োজন করা হয়। শিশু, যুবক, মধ্য বয়সী বৃদ্ধসহ সর্বস্তরের ধর্মপ্রাণ মুসলনান ইস্তসকার নামাজ আদায় শেষে মহান আল্লাহর দরবারে দুই হাত তুলে চোখের পানি ফেলে বৃষ্টির কামনায় ফরিয়াদ করেন।

সকাল ৮টায় নলছিটি সরকারি মার্চেন্টস মাধ্যমিক বিদ্যালয় মাঠে সালাতুল ইসতিসকা আদায় করা হয়। এছাড়াও কাঁঠালিয়া উপজেলায়ও পৃথকভাবে বিভিন্ন সময়ে বৃষ্টি প্রার্থনার নামাজ আদায় করা হয়েছে।

গত কয়েকদিন ধরে ঝালকাঠিতে তাপদাহ চলছে। প্রচণ্ড গরমে মানুষের নাভিশ্বাস উঠেছে। ঘরে-বাইরে কোথাও স্বস্তি নেই। রোদে কাজ করতে গিয়ে শ্রমজীবী মানুষ হাঁপিয়ে উঠছে। হাসপাতালে ডায়রিয়া, টাইফয়েড, নিউমোনিয়াসহ নানা রোগোর প্রকোপ ব্যাপকভাবে বেড়েগেছে।

ট্যাগস :
জনপ্রিয়

ঠাকুরগাঁওয়ে উপজেলা নির্বাচনকে ঘিরে জেলা আওয়ামীঃ রাজনীতিতে বিভক্তি হওয়ার আশঙ্কা

ঝালকাঠির ৪ উপজেলায় ইসতিসকার নামাজ আদায়

আপডেট : ১২:০২:৩০ পূর্বাহ্ন, রবিবার, ২৮ এপ্রিল ২০২৪

আমির হোসেন, ঝালকাঠি প্রতিনিধিঃ

ঝালকাঠিতে অনাবৃষ্টি ও তীব্র দাপদাহ ওষ্ঠাগতপ্রায় জীবন। বৃষ্টির আশায় আকাশপানে তাকিয়ে মানুষ। এমন অবস্থায় গরম থেকে রক্ষা পেতে বৃষ্টি কামনায় ঝালকাঠি জেলার ৪টি উপজেলায়ই ইসতিসকার নামাজ আদায় করা হয়েছে।

শনিবার (২৭ এপ্রিল) সকাল ৯টায় ঝালকাঠি সরকারি উচ্চ বিদ্যালয়ের মাঠে ইসতিসকার নামাজ অনুষ্ঠিত হয়েছে। নির্ধারিত সময়ের আগেই টুপি মাথায় জায়নামাজ নিয়ে মাঠে জড়ো হন স্থানীয় মুসল্লিরা। নামাজে ইমামতি করেন শহরের গুরুধাম জামে মসজিদের ইমাম হাফেজ মহিউদ্দিন। নামাজে সর্বস্তরের মুসল্লিরা এ নামাজে অংশ নেয়।

এদিকে ঝালকাঠির রাজাপুরে সকাল ৯ টায় পাড়গোপালপুর ইসাহাকাবাদ হোসাইনাইনিয়া সিনিয়র আলিম মাদ্রাসার আয়োজনে মাদ্রাসা সংলগ্ন রৌদ্রোজ্জ্বল মাঠে ইসতিসকার নামাজ আদায় করা হয়। নামাজে ইমামতি করেন মাদ্রাসার সিনিয়র প্রভাষক মাওলানা হেমায়েত উদ্দিন। এ সময় অন্যান্যের মধ্যে উপস্থিত ছিলেন মাদ্রাসা অধ্যক্ষ মাওলানা আলমগীর হোসাইন, উপাধ্যক্ষ মাওলানা মাহবুবুর রহমান, প্রভাষক মাওলানা আক্তারুজ্জামান, প্রভাষক মাওলানা মোস্তাফিজুর রহমান, মাওলানা নুরুজ্জামান, মাওলানা আইউব আলী, মাওলানা শহিদুল ইসলামসহ এলাকার বিভিন্ন স্তরের মুসল্লিবৃন্দ।

অনাবৃষ্টি ও তীব্র গরম থেকে বাঁচতে বৃষ্টির প্রার্থনায় এ নামাজের আয়োজন করা হয়। শিশু, যুবক, মধ্য বয়সী বৃদ্ধসহ সর্বস্তরের ধর্মপ্রাণ মুসলনান ইস্তসকার নামাজ আদায় শেষে মহান আল্লাহর দরবারে দুই হাত তুলে চোখের পানি ফেলে বৃষ্টির কামনায় ফরিয়াদ করেন।

সকাল ৮টায় নলছিটি সরকারি মার্চেন্টস মাধ্যমিক বিদ্যালয় মাঠে সালাতুল ইসতিসকা আদায় করা হয়। এছাড়াও কাঁঠালিয়া উপজেলায়ও পৃথকভাবে বিভিন্ন সময়ে বৃষ্টি প্রার্থনার নামাজ আদায় করা হয়েছে।

গত কয়েকদিন ধরে ঝালকাঠিতে তাপদাহ চলছে। প্রচণ্ড গরমে মানুষের নাভিশ্বাস উঠেছে। ঘরে-বাইরে কোথাও স্বস্তি নেই। রোদে কাজ করতে গিয়ে শ্রমজীবী মানুষ হাঁপিয়ে উঠছে। হাসপাতালে ডায়রিয়া, টাইফয়েড, নিউমোনিয়াসহ নানা রোগোর প্রকোপ ব্যাপকভাবে বেড়েগেছে।