ঢাকা ০৭:০৫ অপরাহ্ন, শনিবার, ২৪ ফেব্রুয়ারী ২০২৪, ১২ ফাল্গুন ১৪৩০ বঙ্গাব্দ

লিফলেট পোস্টার বানানোর কথা বলে লক্ষ টাকা আত্মসাৎ এর অভিযোগ যুবদল নেতার বিরুদ্ধে

শাওন আমিন,

দেশের ভুল আলোচিত অনলাইন নিউজ পোর্টাল পত্রিকার সম্পাদক সহ বেশকিছু ভুক্তভোগীর কাছে লিফলেট পোস্টার বানানোর কথা বলে প্রতারণা করে প্রায় লক্ষাধিক টাকা আত্মসাৎ এর অভিযোগ যশোর ঝিকরগাছা ইউনিয়নের যুবদল নেতার বিরুদ্ধে।

প্রতারক যুবদল নেতা যশোর ঝিকরগাছা ইউনিয়নের পদ্ম পুকুর গ্রামের মাওলা বক্স এর পুত্র।
তথ্য বিবরনে জানা যায়,উদ্দেশ্যপ্রণোদিতভাবে এই অনলাইনে বিভিন্ন ব্যক্তিবর্গের ফেসবুক প্রোফাইলে ঢুকে তাদের ফোন নাম্বার সংগ্রহ করে এবং তাদের কালেকশন করে নামমাত্র দুই একটা পোস্টার বা লিফলেট তৈরি করে অতঃপর তাদের কাছ থেকে আরো পোস্টার কিংবা লিফলেট তৈরি করে দেবে মর্মে প্রতারণার ফাঁদে ফেলে অগ্রিম টাকা হাতিয়ে নেয়ার পর যোগাযোগ বন্ধ করে।

নাম বলতে অনিচ্ছুক বেশ কজন ভুক্তভোগীর অভিযোগ আমির চান নামের এক প্রতারক পোস্টার বানিয়ে দেবে মর্মে আমাদের বিভিন্নভাবে লোভ দেখিয়ে প্রতারণার ফাঁদে ফেলে আমাদের কাছে অর্থ গ্রহণ করেন। পরে যোগাযোগ করার চেষ্টা করলে সে যুবদল নেতার পরিচয় দিয়ে ফোনে বিভিন্নভাবে হুমকি-ধমকি দেয়ার পর যোগাযোগ বিচ্ছিন্ন করে তার ব্যবহৃত বন্ধ করে।

এবিষয়ে ভুক্তভোগী সম্পাদক শাওন আমিনের কাছে জানতে চাইলে তিনি বলেন,অনেকেই তার কথায় বিশ্বাস করে বিকাশ করে আবার অনেকেই করে না, কিন্তু আমি তার কথায় বিশ্বাস করে তার 01712866275 ( বিকাশ পারশোনাল) 01911604160 ( নগদ) এই নাম্বারে কিছু টাকা দিয়েছি। ৩ দিন পর যখন আমি জানতে পারি এই লোক প্রতারণা করে আমার কাছ থেকে টাকা নিয়েছে তখন তাকে ফোন করি। সে ব্যাস্ততার ভান করে ফোন কেটে আমার মোবাইল নাম্বার ব্ল্যাক লিস্টে ফেলে দেয় এবং গত দুই দিন থেকে আমার নাম্বারে প্রতি দশ মিনিট অন্তর অন্তর ফোন আসায় আমি অবাক হয়ে যাই। এদের কাউকেই আমি চিনি না। পরে তাদের একজনের মাধ্যমে জানতে পারলাম, আমার ফোন নাম্বার দিয়ে মেয়ের নাম ছবি দিয়ে কয়েকটা ফেইসবুক আইডি তে পোষ্ট করেছে। লিখেছে এই নাম্বার টা একজন মেয়ে পতিতার। আর আপনারা ভাল করেই জানেন আমাদের রেমিট্যান্স যোদ্ধাদের ৯৯% লোক চরিত্রহীন। তারা মেয়ের ছবি আর ফোন নাম্বার পাবার সাথে সাথে আমার নাম্বারে ফোন দিয়ে বিরক্ত করা শুরু করেছে। উপায়ন্ত না দেখে আমি যশোর ঝিকরগাছা থানার ওসি সাহেবের ফোন নাম্বার যোগার করে উনাকে মৌখিক ভাবে পুরো ব্যাপার টা জানাই সব কটা আইডির লিংক ওসি সাহেব কে দেই। ওসি সাহেব আমাকে আশ্বস্ত করেছেন, এ ব্যাপাএ টা তিনি গুরুত্ব সহকারে দেখবেন এবং প্রয়োজনীয় ব্যাবস্থা নেবেন।

ট্যাগস :
জনপ্রিয়

পুকুরে ধরা পড়ল রুপালি ইলিশ

লিফলেট পোস্টার বানানোর কথা বলে লক্ষ টাকা আত্মসাৎ এর অভিযোগ যুবদল নেতার বিরুদ্ধে

আপডেট : ০৫:৩৯:৪১ অপরাহ্ন, মঙ্গলবার, ২৬ ডিসেম্বর ২০২৩

শাওন আমিন,

দেশের ভুল আলোচিত অনলাইন নিউজ পোর্টাল পত্রিকার সম্পাদক সহ বেশকিছু ভুক্তভোগীর কাছে লিফলেট পোস্টার বানানোর কথা বলে প্রতারণা করে প্রায় লক্ষাধিক টাকা আত্মসাৎ এর অভিযোগ যশোর ঝিকরগাছা ইউনিয়নের যুবদল নেতার বিরুদ্ধে।

প্রতারক যুবদল নেতা যশোর ঝিকরগাছা ইউনিয়নের পদ্ম পুকুর গ্রামের মাওলা বক্স এর পুত্র।
তথ্য বিবরনে জানা যায়,উদ্দেশ্যপ্রণোদিতভাবে এই অনলাইনে বিভিন্ন ব্যক্তিবর্গের ফেসবুক প্রোফাইলে ঢুকে তাদের ফোন নাম্বার সংগ্রহ করে এবং তাদের কালেকশন করে নামমাত্র দুই একটা পোস্টার বা লিফলেট তৈরি করে অতঃপর তাদের কাছ থেকে আরো পোস্টার কিংবা লিফলেট তৈরি করে দেবে মর্মে প্রতারণার ফাঁদে ফেলে অগ্রিম টাকা হাতিয়ে নেয়ার পর যোগাযোগ বন্ধ করে।

নাম বলতে অনিচ্ছুক বেশ কজন ভুক্তভোগীর অভিযোগ আমির চান নামের এক প্রতারক পোস্টার বানিয়ে দেবে মর্মে আমাদের বিভিন্নভাবে লোভ দেখিয়ে প্রতারণার ফাঁদে ফেলে আমাদের কাছে অর্থ গ্রহণ করেন। পরে যোগাযোগ করার চেষ্টা করলে সে যুবদল নেতার পরিচয় দিয়ে ফোনে বিভিন্নভাবে হুমকি-ধমকি দেয়ার পর যোগাযোগ বিচ্ছিন্ন করে তার ব্যবহৃত বন্ধ করে।

এবিষয়ে ভুক্তভোগী সম্পাদক শাওন আমিনের কাছে জানতে চাইলে তিনি বলেন,অনেকেই তার কথায় বিশ্বাস করে বিকাশ করে আবার অনেকেই করে না, কিন্তু আমি তার কথায় বিশ্বাস করে তার 01712866275 ( বিকাশ পারশোনাল) 01911604160 ( নগদ) এই নাম্বারে কিছু টাকা দিয়েছি। ৩ দিন পর যখন আমি জানতে পারি এই লোক প্রতারণা করে আমার কাছ থেকে টাকা নিয়েছে তখন তাকে ফোন করি। সে ব্যাস্ততার ভান করে ফোন কেটে আমার মোবাইল নাম্বার ব্ল্যাক লিস্টে ফেলে দেয় এবং গত দুই দিন থেকে আমার নাম্বারে প্রতি দশ মিনিট অন্তর অন্তর ফোন আসায় আমি অবাক হয়ে যাই। এদের কাউকেই আমি চিনি না। পরে তাদের একজনের মাধ্যমে জানতে পারলাম, আমার ফোন নাম্বার দিয়ে মেয়ের নাম ছবি দিয়ে কয়েকটা ফেইসবুক আইডি তে পোষ্ট করেছে। লিখেছে এই নাম্বার টা একজন মেয়ে পতিতার। আর আপনারা ভাল করেই জানেন আমাদের রেমিট্যান্স যোদ্ধাদের ৯৯% লোক চরিত্রহীন। তারা মেয়ের ছবি আর ফোন নাম্বার পাবার সাথে সাথে আমার নাম্বারে ফোন দিয়ে বিরক্ত করা শুরু করেছে। উপায়ন্ত না দেখে আমি যশোর ঝিকরগাছা থানার ওসি সাহেবের ফোন নাম্বার যোগার করে উনাকে মৌখিক ভাবে পুরো ব্যাপার টা জানাই সব কটা আইডির লিংক ওসি সাহেব কে দেই। ওসি সাহেব আমাকে আশ্বস্ত করেছেন, এ ব্যাপাএ টা তিনি গুরুত্ব সহকারে দেখবেন এবং প্রয়োজনীয় ব্যাবস্থা নেবেন।