ঢাকা ০৬:০০ পূর্বাহ্ন, মঙ্গলবার, ২১ মে ২০২৪, ৭ জ্যৈষ্ঠ ১৪৩১ বঙ্গাব্দ

ঠাকুরগাঁওয়ে সন্তানের বিরুদ্ধে মা এর সংবাদ সম্মেলন

মাহমুদ আহসান হাবিব, ঠাকুরগাঁও ॥

স্বামীর রেখে যাওয়া ব্যাংক এর টাকা সন্তানকে না দেওয়ায় মাকে নির্যাতন। প্রতিবাদে সন্তানের বিচার চেয়ে মা এর সংবাদ সম্মেলন।

গতকাল দুপুরে শহরের সদর উপজেলা মুক্তিযোদ্ধা কমপ্লেক্সের স্থানীয় বাংলার আলো পত্রিকা কার্যালয়ে এ সংবাদ সম্মেলনটি অনুষ্ঠিত হয়।

সংবাদ সম্মেলনে লিখিত বক্তব্যে মা সাবেরা বেগম বলেন, আমি একজন বয়স্কা মহিলা। আমার স্বামী পাট কলে চাকুরী করার সুবাদে মৃত্যুর আগে সে আমার নামে সোনালী ব্যাংকে ১২ লক্ষ টাকা রেখে যায়। আমার বড় ছেলে রাজিব (৩৩) দীর্ঘদিন ধরেই সে টাকা নেয়ার জন্যে আমাকে প্রথমে হুমকি ধামকি দেয় এবং সম্প্রতি সে আমাকে শারিরীক নির্যাতন করছে। যার কারনে গত কয়েকদিন আগেও আমাকে হাসপাতালে চিকিৎসা নিতে হয়েছে। এতেও সে ক্ষান্ত না হয়ে আমার ছোট ছেলে ইমরানের নামে মিথ্যে মামলা দেয়। বড় ছেলে রাজিব জেলা আইনজীবি সমিতিতে পিয়ন পদে চাকুরী করায় আমি ও আমার ছোট ছেলে আইনজীবি সমিতি বা পুলিশি কোন সহায়তা পাইনি। এ অবস্থায় আমি সাংবাদিকদের দারস্থ হয়েছি। আমি ও আমার ছোট ছেলে অসহায় জীবন যাপন করছি। আমি একজন মা হয়ে দেশের মা প্রধানমন্ত্রীর সহায়তা কামনা করছি। না হলে আমাদের বাঁচার কোন পথই আর খোলা দেখছি না।

ট্যাগস :
জনপ্রিয়

ঠাকুরগাঁওয়ে উপজেলা নির্বাচনকে ঘিরে জেলা আওয়ামীঃ রাজনীতিতে বিভক্তি হওয়ার আশঙ্কা

ঠাকুরগাঁওয়ে সন্তানের বিরুদ্ধে মা এর সংবাদ সম্মেলন

আপডেট : ১০:৫২:৫৯ অপরাহ্ন, বুধবার, ১৩ মার্চ ২০২৪

মাহমুদ আহসান হাবিব, ঠাকুরগাঁও ॥

স্বামীর রেখে যাওয়া ব্যাংক এর টাকা সন্তানকে না দেওয়ায় মাকে নির্যাতন। প্রতিবাদে সন্তানের বিচার চেয়ে মা এর সংবাদ সম্মেলন।

গতকাল দুপুরে শহরের সদর উপজেলা মুক্তিযোদ্ধা কমপ্লেক্সের স্থানীয় বাংলার আলো পত্রিকা কার্যালয়ে এ সংবাদ সম্মেলনটি অনুষ্ঠিত হয়।

সংবাদ সম্মেলনে লিখিত বক্তব্যে মা সাবেরা বেগম বলেন, আমি একজন বয়স্কা মহিলা। আমার স্বামী পাট কলে চাকুরী করার সুবাদে মৃত্যুর আগে সে আমার নামে সোনালী ব্যাংকে ১২ লক্ষ টাকা রেখে যায়। আমার বড় ছেলে রাজিব (৩৩) দীর্ঘদিন ধরেই সে টাকা নেয়ার জন্যে আমাকে প্রথমে হুমকি ধামকি দেয় এবং সম্প্রতি সে আমাকে শারিরীক নির্যাতন করছে। যার কারনে গত কয়েকদিন আগেও আমাকে হাসপাতালে চিকিৎসা নিতে হয়েছে। এতেও সে ক্ষান্ত না হয়ে আমার ছোট ছেলে ইমরানের নামে মিথ্যে মামলা দেয়। বড় ছেলে রাজিব জেলা আইনজীবি সমিতিতে পিয়ন পদে চাকুরী করায় আমি ও আমার ছোট ছেলে আইনজীবি সমিতি বা পুলিশি কোন সহায়তা পাইনি। এ অবস্থায় আমি সাংবাদিকদের দারস্থ হয়েছি। আমি ও আমার ছোট ছেলে অসহায় জীবন যাপন করছি। আমি একজন মা হয়ে দেশের মা প্রধানমন্ত্রীর সহায়তা কামনা করছি। না হলে আমাদের বাঁচার কোন পথই আর খোলা দেখছি না।