ঢাকা ০৭:৫৮ পূর্বাহ্ন, মঙ্গলবার, ২১ মে ২০২৪, ৭ জ্যৈষ্ঠ ১৪৩১ বঙ্গাব্দ

লালমনিরহাটের কালীগঞ্জে চুরির অপবাদ দিয়ে যুবককে মারধর, অভিমানে বিষপানে আত্মহত্যা

ঈশাত জামান মুন্না লালমনিরহাট প্রতিনিধিঃ

জেলার কালীগঞ্জে মোটরবাইক চুরির অপবাদে নির্যাতনের শিকার হওয়ার অভিমানে বিষপানে নুর আলম (২৮) নামে এক নরসুন্দর যুবক আত্নহত্যা করেছেন। রোববার (২৫ফেব্রুয়ারী) দুপুরে উপজেলার তুষভাণ্ডার ইউনিয়নের কাঞ্চনশ্বর দুল্লার বাজার এলাকায় উক্ত ঘটনা ঘটে।
নিহত নুর আলম ওই এলাকার মৃত নওশের আলীর ছেলে। তার পাঁচ মাস বয়সী একটি কন্যা সন্তান রয়েছে।
নিহত নুর আলম পেশায় একজন নরসুন্দর। শনিবার দিবাগত রাত দুইটার দিকে নরসুন্দর এর কাজ শেষে বাড়ি ফেরার পথে বাড়ির পাশে দুল্লারবাজারে একটি মটরসাইকেল দেখতে পায়। সেখানে কাউকে না পেয়ে গাড়িটি তার বাড়ির সামনে এনে রাখেন। পরবর্তী রোববার সকালে গাড়ির মালিক একই এলাকার আসাদুল খোঁজ পেয়ে তার কাছে এসে মিষ্টি খাওয়ানোর কথা বলে পাঁচ হাজার টাকা দিয়ে মটরসাইকেল চায়। মটরসাইকেল নেওয়ার পরে তাকে কৌশলে দুল্লারবাজার ক্লিনিকের সামনে নিয়ে তাকে দেওয়া টাকা হাতিয়ে মারধর করে।
এ সময় আসাদুলের পিতা আজিজুল, চাচা নাজুল্লা কিল-ঘুষি মেরে বুকের উপর উঠে ব্যাপক আহত করে। এক-পর্যায়ে চোরের অপবাদ দেওয়ায় অভিমানে ওই যুবক পাশ্ববর্তী বাজার থেকে বিষ নিয়ে বাড়িতে এসে সবার অজান্তে বিষপান করে আত্মহত্যা করে।

ট্যাগস :
জনপ্রিয়

ঠাকুরগাঁওয়ে উপজেলা নির্বাচনকে ঘিরে জেলা আওয়ামীঃ রাজনীতিতে বিভক্তি হওয়ার আশঙ্কা

লালমনিরহাটের কালীগঞ্জে চুরির অপবাদ দিয়ে যুবককে মারধর, অভিমানে বিষপানে আত্মহত্যা

আপডেট : ১০:১৬:০৮ অপরাহ্ন, রবিবার, ২৫ ফেব্রুয়ারী ২০২৪

ঈশাত জামান মুন্না লালমনিরহাট প্রতিনিধিঃ

জেলার কালীগঞ্জে মোটরবাইক চুরির অপবাদে নির্যাতনের শিকার হওয়ার অভিমানে বিষপানে নুর আলম (২৮) নামে এক নরসুন্দর যুবক আত্নহত্যা করেছেন। রোববার (২৫ফেব্রুয়ারী) দুপুরে উপজেলার তুষভাণ্ডার ইউনিয়নের কাঞ্চনশ্বর দুল্লার বাজার এলাকায় উক্ত ঘটনা ঘটে।
নিহত নুর আলম ওই এলাকার মৃত নওশের আলীর ছেলে। তার পাঁচ মাস বয়সী একটি কন্যা সন্তান রয়েছে।
নিহত নুর আলম পেশায় একজন নরসুন্দর। শনিবার দিবাগত রাত দুইটার দিকে নরসুন্দর এর কাজ শেষে বাড়ি ফেরার পথে বাড়ির পাশে দুল্লারবাজারে একটি মটরসাইকেল দেখতে পায়। সেখানে কাউকে না পেয়ে গাড়িটি তার বাড়ির সামনে এনে রাখেন। পরবর্তী রোববার সকালে গাড়ির মালিক একই এলাকার আসাদুল খোঁজ পেয়ে তার কাছে এসে মিষ্টি খাওয়ানোর কথা বলে পাঁচ হাজার টাকা দিয়ে মটরসাইকেল চায়। মটরসাইকেল নেওয়ার পরে তাকে কৌশলে দুল্লারবাজার ক্লিনিকের সামনে নিয়ে তাকে দেওয়া টাকা হাতিয়ে মারধর করে।
এ সময় আসাদুলের পিতা আজিজুল, চাচা নাজুল্লা কিল-ঘুষি মেরে বুকের উপর উঠে ব্যাপক আহত করে। এক-পর্যায়ে চোরের অপবাদ দেওয়ায় অভিমানে ওই যুবক পাশ্ববর্তী বাজার থেকে বিষ নিয়ে বাড়িতে এসে সবার অজান্তে বিষপান করে আত্মহত্যা করে।